২য় বছরে যমুনা টিভি

সোমবার, এপ্রিল ৬, ২০১৫

:: প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

jamunatv-২য় বছরে পা দিল ২৪ ঘণ্টার সংবাদভিত্তিক টেলিভিশন যমুনা। চাহিদা কতটুকু পূরণ করতে পেরেছে তার মূল্যায়ন করবেন দর্শকরা। তবে সবশেষ সংবাদ জানতে দর্শকরা এখন সবার আগে যমুনা টেলিভিশন সুইচ করছেন। এক বছরের পথচলায় এটাই যমুনার বড় পাওয়া।

সর্বাধুনিক প্রযুক্তির ব্যবহার আর এমসিআর, বার্তা, গ্রাফিক্স আর সম্প্রচার ও আইটি বিভাগের সম্মিলিত চেষ্টায় যমুনার দর্শকপ্রিয়তা দিনকে দিন বাড়ছে। জন্মদিনে আড়ম্বরপূর্ণ কোনো আয়োজন নাই যমুনার। তবে এক বছরের পথচলায় সফলতা-ব্যর্থতা নিয়ে আছে নিজেদের আত্মজিজ্ঞাসা-জবাবদিহিতা।

রোববার বিকেল ৫টায় যমুনা টিভির কার্যালয়ে থাকছে কেক কাটার অনুষ্ঠান। এ ছাড়া আজ থেকে আগামী ১১ এপ্রিল পর্যন্ত চ্যানেলটিতে প্রচারিত অনুষ্ঠানগুলোতে ভিন্নতা থাকবে।

যমুনা টিভির জনসংযোগ বিভাগের ম্যানেজার আইরিন খান বলেন, ‘আড়ম্বরপূর্ণ আয়োজন না থাকলেও বিকাল ৫টায় সকল সংবাদকর্মী, কর্মকর্তা ও কর্মচারীর উপস্থিতিতে জন্মদিনের কেক কাটা হবে।’ তিনি জানান, প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে রোববার থেকে ১১ এপ্রিল পর্যন্ত আমাদের প্রচারিত সকল অনুষ্ঠানে ভিন্নতা থাকবে, থাকবে নতুনত্ব।’

এক বছরের পথচলায় অনেক চড়াই-উৎরাই পার হতে হয়েছে চ্যানেলটিকে। বিশ্বখ্যাত সাংবাদিক সাইমন ড্রিং যমুনার সাথে থাকছেন না, এমন গুঞ্জন ছিলো মিডিয়াপাড়ায়।

প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আবু আলম মোস্তফা শহীদও কর্তৃপক্ষের সঙ্গে ভুল বোঝাবুঝি হওয়ায় পদত্যাগ করেছেন। যমুনা ছাড়তে হয়েছে শুরু দিকের অন্যতম কারিগর সুপন রায়কে। বার্তা প্রধান নিয়েও অনেক জল্পনা কল্পনা ছিলো।

ইনকিলাবের নগর সম্পাদকের পদ ছেড়ে অবশেষে বার্তাপ্রধানের দায়িত্ব নেন জাকারিয়া কাজল। মাঝপথে এটিএন বাংলা ছেড়ে যমুনার পরিচালক, বার্তা ও অনুষ্ঠান হিসেবে যোগ দিয়েছেন জ ই মামুন। তিনি নিয়মিত টকশো ২৪ ঘণ্টাও উপস্থাপনা করছেন। অনুসন্ধানিমূলক অনুষ্ঠান ৩৬০ ডিগ্রি দর্শকের সাধুবাদ পেয়েছে।

মুনার শুরুর অভিজ্ঞতা নিয়ে চ্যানেলটির বিশেষ প্রতিনিধি মহসিন উল হাকিম তার ফেসবুক স্ট্যাটাসে লিখেছেন, “দেড় বছর আগের কথা। তখন আমি চ্যানেল টুয়েন্টিফোর এ। যমুনা টেলিভিশনে ডাক পেলাম। কোন চিন্তা ভাবনা না করেই চলে এলাম যমুনায়। আসার পর দেখি… আমাদের সিএনই ফাহিম আহমেদ সহকর্মী নিয়োগের কাজ করছেন।

টার্গেট বিভিন্ন টেলিভিশনে ভাল কাজ করছে, এমন সংবাদকর্মীরা। কিন্তু সে এক কঠিন সময়। যমুনা টিভি আসবে না.. আসলেও চলবে না… চললেও এই টিম দিয়ে ভাল কিছু হবে না… লিডারশিপ সমস্যা… আরো কত কথা!!! আমি অবশ্য হতাশ হইনি।

নিজের কাজ করে যাওয়ার চেষ্টা করেছি। নিজের সব টুকু দিয়ে যমুনা নিউজের একটি কোণা ভরানোর চেষ্টা করেছি। একই ভাবে ঢাকাসহ সারাদেশের উদ্যোমী একঝাঁক সহকর্মী (যারা নিজেদের জীবিকার ঝুঁকি নিয়েই এসেছেন যমুনায়) নিজেদের সবটুকু দিয়ে কাজ শুরু করলেন। অবশেষে আসলো ৫ এপ্রিল। যমুনার আনুষ্ঠানিক যাত্রা।

অনেক টানাপড়েন পেরিয়ে সাইমন ড্রিং এর নেতৃত্বে শুরু হলো যমুনার যাত্রা। একদিন, দু’দিন, এক মাস, দু’মাস করে একটা বছর পেরিয়ে গেলো।