কুষ্টিয়ায় থানায় আটকে নির্যাতনের অভিযোগ

সোমবার, মার্চ ১৬, ২০১৫

:: কুষ্টিয়া প্রতিনিধি ::

journalist123কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় মনোয়ার হোসেন মারুফ নামের এক সাংবাদিককে বেধড়কভাবে পিটিয়ে বাড়ী থেকে থানায় নিয়ে ৪ঘন্টা আটকে রেখে নির্যাতনের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তিনি স্থানীয় একটি পত্রিকার ভেড়ামারা সংবাদদাতা হিসেবে কর্মরত ছিলেন।

গত শুক্রবার রাত ১০ টার দিকে ভেড়ামারা উপজেলায় এ ঘটনা ঘটে।

সাংবাদিক মারুফ বলেন, ‘শুক্রবার রাতে কোন কারণ ছাড়াই আমার বাড়ীতে ভেড়ামারা থানার উপ-পরিদর্শক (এস আই) শাহ আলমসহ কয়েকজন সাদা পোশাকের পুলিশ এসে আমাকে বেধড়ক পিটিয়ে জামার কলার চেপে ধরে মোটর সাইকেলে বসিয়ে জোর করে ভেড়ামারা মডেল থানায় নিয়ে যায়। সেখানে গিয়ে আমাকে নির্যাতন করে।’

তিনি আরো বলেন, ‘পরে স্থানীয় সাংবাদিক ও গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের চাপের কাছে নতি স্বীকার করে থানা হাজত থেকে ৪ ঘন্টা পর একটি সাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে ছেড়ে দেয়। এসময় এসআই শাহ আলম মারুফকে হুমকি দিয়ে বলেন, ভেড়ামারা থানায় একটানা ৮ বছর ধরে আছি। তোর মত সাংবাদিককে সাইজ করতে সময় লাগবেনা।’

ভেড়ামারা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদ খান জানান, ‘আমি ছুটিতে ছিলাম এ ব্যাপারে কিছুই জানি না।’

কুষ্টিয়া জজ কোর্টের এ্যাডভোকেট পি. এম. সিরাজুল ইসলাম বলেন, ‘সংবিধান অনুযায়ী কোন ব্যক্তির উপর নিষ্ঠুর অন্যায় আচরণ করা যাবে না। সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ব্যতিত কাউকে গ্রেফতার করা যাবে না। অথচ এসব সংবিধান ও প্রচলিত আইন-কানুনের প্রতি তোয়াক্কা না করে ভেড়ামারা থানার উপ-পরিরদর্শক এ ধরনের অপরাধ করেছেন।’