প্রসঙ্গঃ মফস্বল সাংবাদিকতা

মঙ্গলবার, ১৯/০৩/২০১৩ @ ১০:৩২ অপরাহ্ণ

জে আই সাগর::
mofossol journalসাংবাদিকতার পেশাটা নিঃসন্দেহে একটি মহান পেশা। সমাজের গুরু দায়িত্ব আর দেশের কল্যানে নিয়োজিত সকল সাংবাদিক। তাঁদের প্রতি কোন মন্তব্য করা আমার মত মূর্খের সাজেনা। তবুও বাক স্বাধীনতা যেহেতু প্রতিটি মানুষের অধিকার সেহেতু দু একটা কথা লিখতে গিয়ে যদি অন্যায় কিছু করি তবে ক্ষমা করবেন। প্রায় সব কয়টি পত্রিকারই সংবাদদাতা রয়েছেন জেলা কিংবা উপজেলা পর্যায়ে। তবে জেলা কিংবা উপজেলা ভিত্তিক কিছু কিছু সংবাদদাতা নিয়োগ করা হয়, যাদের কাজ করার যোগ্যতা কতটুকু রয়েছে তা বিবেচনা না করেই সুপারিশের ভিত্তিতে তাদের হাতে সমাজের এই মহান দায়িত্ব তুলে দেয়া হয়। ফলে অবমূল্যায়ন হচ্ছে এ পেশার মান।
যেমন ব্রাহ্মণবাড়িয়ার এক উপজেলায় এমন এক ব্যক্তি রয়েছে যার নামে থানাতে রয়েছে মাদক প্রাচারসহ বিভিন্ন আইনে একাধিক মামলা। এমনকি মাদক পাচারের গড ফাদার বলে খ্যাত ওই ব্যক্তির হাতে একটি পত্রিকার উপজেলা সংবাদদাতা হিসেবে আইডি কার্ড তুলে দিয়েছে। এখন সে একদিকে মাদক পাচার করছে অপর দিকে ফিতায় বেধে পকেটে কার্ডটি রেখে নিজেকেও একজন সাংবাদিক বলে দাবি করে।
ঢাকায় একজন সুনামধন্য সাংবাদিক প্রথমে একটি টিভি চ্যানেলের বেশ ভাল একটি পদে ছিলেন যোগ্যতা বিচার না করেই তাঁহার একজন বন্ধুর ছেলেকে ওই টিভি চ্যানেলের প্রতিনিধি বানালেন, আবার যখন তিনি বছর খানেক পর অন্য টিভি চ্যানেলের আরেকটু উপরের পদে চলে গেলেন সাথে এই প্রতিনিধিকেও নিলেন এবং নিয়োগ দিলেন।
প্রকৃতপক্ষে পক্ষে কীভাবে একটি খবর লেখা শুরু করতে হয় সে সম্পর্কেও এই প্রতিনিধির তেমন ভাল জ্ঞান নেই। তার নিয়োগকর্তা কিন্তু অবগত হওয়া সত্বেও নিজের সাথে করে অন্য চ্যানেলের সাংবাদদাতা হিসেবে তাকে নিয়োগ দেয়।
এই সব লোকদের কারনেই মফস্বল সাংবাদিকদের যেমন সম্মানহানী ঘটছে তেমনি সমালোচিত হচ্ছে নিয়োগ প্রদানকারী মিডিয়াগুলো।
তাই আমি মনে করি ,যারা জেলা কিংবা উপজেলায় সংবাদদাতা নিয়োগ দেয় তারা যদি প্রকৃতপক্ষে যোগ্যতার ভিত্তিতে অর্থাৎ সংবাদ লেখার যোগ্যতা যাচাই করে তাদের হাতে এই দায়িত্ব তুলে দিত। তবে প্রকৃতপক্ষে যারা মফস্বল এলাকায় এই মহান পেশার সাথে জড়িত থেকে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছে সমাজের জন্য ভাল কিছু উপহার দেয়ার লক্ষ্যে তাদের সুনাম অক্ষুন্ন থাকত।
লেখক: সংবাদকর্মী।

সর্বশেষ