ইনকিলাবের দুঃখ প্রকাশ

রবিবার, আগস্ট ২৪, ২০১৪

:: গোলাম ফারুক দুলাল ::

inqilab logoগত ১৮ আগস্ট ইনকিলাবে ‘প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে একচ্ছত্র আধিপত্য এক পুলিশ কর্মকর্তার’ ‘তিনি পুলিশ বাহিনীতে তৈরী করেছেন অঘোষিত হিন্দু লীগ’ শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদটি প্রত্যাহার করেছে পত্রিকাটি। এছাড়া সংবাদটি প্রকাশ করায় দুঃখ প্রকাশও করেছে ইনকিলাব। এ প্রসঙ্গে ইনকিলাবে একটি কৈফিয়ত ছাপানো হয়েছে। নিম্নে তা হুবহু তুলে ধরা হয়।

গত ১৮ আগস্ট, ২০১৪ দৈনিক ইনকিলাবে প্রকাশিত ‘প্রধানমন্ত্রীর নাম ভাঙ্গিয়ে একচ্ছত্র আধিপত্য এক পুলিশ কর্মকর্তার’ ‘তিনি পুলিশ বাহিনীতে তৈরী করেছেন অঘোষিত হিন্দু লীগ’ শীর্ষক রিপোর্টটি প্রকাশের জন্য গভীর দুঃখ প্রকাশ করেছেন দৈনিক ইনকিলাব সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ। একই সাথে রিপোর্টটি প্রত্যাহার করে, নেয়ার সিদ্ধান্ত ঘোষণা করছে ইনকিলাব কর্তৃপক্ষ।

ইনকিলাব কর্তৃপক্ষ বিনয়ের সাথে স্বীকার করছে, রিপোর্টটি লেখা, সম্পাদনা ও প্রকাশের ক্ষেত্রে যথেষ্ট সাবধানতা অবলম্বন করা হয়নি। এ ছাড়া রিপোর্টটি প্রকাশের পর অনুসন্ধানে দেখা গেছে, এর অনেক তথ্যই সত্যের উপর প্রতিষ্ঠিত নয়। রিপোর্টটিতে ঊর্ধ্বতন দায়িত্বশীল পুলিশ কর্মকর্তা বাবু প্রলয় কুমার জোয়ারদার, এআইজি (পিএন্ডআর) সম্পর্কে অসত্য তথ্য উপস্থাপন করা হয়েছে।

আমরা বিশ্বাস করি কোনভাবেই ব্যক্তিগতভাবে তাকে বা দায়িত্বশীল পুলিশবাহিনীকে জড়িয়ে এ রকম প্রতিবেদন প্রকাশ করা সমীচীন হয়নি। এ ছাড়া এই রিপোর্টে একটি বিশেষ সম্প্রদায়ের সন্মানিত সদস্যদের ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত দেয়ার মতো শব্দ প্রয়োগ হওয়ায় আমরা সত্যি দুঃখিত। এ ধরনের শব্দ ও বাক্য প্রয়োগে যে সকল ব্যক্তি, প্রতিষ্ঠান ও বিশেষ সম্প্রদায়ের সন্মানিত সদস্যগণ মনেকষ্ট পেয়েছেন তাদের প্রতি ইনকিলাব কর্তৃপক্ষের আবেদন, তারা যেন আমাদের অনিচ্ছাকৃত এই ভুলকে ক্ষমা সুন্দর দৃষ্টিতে দেখেন।

ইনকিলাব কর্তৃপক্ষ সুস্পষ্টভাবে জানাচ্ছে যে, বাংলাদেশ রাষ্ট্রের সুনাম হানি হয় এবং দেশে সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা বা বিভেদ সৃষ্টি হতে পারে এমন সংবাদ পরিবেশনের ক্ষেত্রে ভবিষ্যতে দৈনিক ইনকিলাব আরও সতর্কতা অবলম্বন করবে; আরও সচেতন থাকবে।
দেশের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, সংবিধান সমুন্নত রাখতে দৈনিক ইনকিলাব সব সময়ই অঙ্গীকারাবদ্ধ। এই প্রেক্ষাপটে আমরা আবারও জানাচ্ছি যে গত ১৮ আগস্ট, ২০১৪ তারিখে প্রকাশিত রিপোর্টটি একেবারেই অনিচ্ছাকৃত ও অসতর্কতার জন্যই প্রকাশিত হয়েছে। এজন্য অভ্যন্তরীণভাবে কে বা কারা দায়ী, তাদের দায় নিরুপণ করে দায়ীদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়ার প্রক্রিয়া চলছে।

এ প্রেক্ষিতে আমরা গত ১৮ আগস্ট, ২০১৪ দৈনিক ইনকিলাবের সকল সংস্করণে উল্লিখিত শিরেনামে প্রকাশিত সংবাদটি এবং এর সঙ্গে সম্পর্কিত প্রকাশিত সকল রিপোর্ট ও মন্তব্য নিঃশর্তভাবে প্রত্যাহার করছি। আমাদের প্রত্যাশা এর মাধ্যমে, সব ভুল বোঝাবুঝির অবসান ঘটবে। ইনকিলাব কর্তৃপক্ষ সবার সহযোগিতা প্রত্যাশা করে।

সম্পাদক
দৈনিক ইনকিলাব

সর্বশেষ