বিক্রি হয়ে যাচ্ছে বৈশাখী টিভি!

মঙ্গলবার, ২৭/০৮/২০১৩ @ ৪:০৩ পূর্বাহ্ণ

:: প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

boishaki tv logo(২৭ আগস্ট ২০১৩)- মাল্টিলেভেল মার্কেটিং কোম্পানি ডেসটিনি গ্রুপের মালিকানাধীন স্যাটেলাইট টেলিভিশন চ্যানেল বৈশাখী টিভি বিক্রি হয়ে যাচ্ছে বলে শোনা যাচ্ছে। ফলে আবারো নতুন করে আলোচনায় চলে এসেছে ডেসটিনি ও বৈশাখী টেলিভিশন।

জানা যায়, বৈশাখী টিভির মালিকানা পরিবর্তন নিয়ে জোর আলোচনা চলছে। অনেকে শতভাগ নিশ্চিত হয়েই দাবি করছেন, বৈশাখীর মালিকানায় পরিবর্তন আসছে আর কিছুদিনের মধ্যেই। ডেসটিনি নাকি একশো কোটি টাকার বিনিময়ে শেয়ার হস্তান্তরের প্রক্রিয়া শুরু করেছে এবং বিষয়টি এখন চূড়ান্ত পর্যায়ে আছে। অনেকে আবার এ খবরকে স্রেফ গুজব বলে উড়িয়ে দিচ্ছেন।

তবে শুরু থেকেই বৈশাখীর মালিকানা নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে যে তা সবাইর জানা। বিগত চারদলীয় জোট সরকারের সময় টিপু আলম নামের একজন বৈশাখী টেলিভিশনের লাইসেন্স নেন। ওই সময় প্রতিষ্ঠানটির ব্যবস্থাপনায় ছিলেন এম শহিদুল্লাহ। তবে কথিত আছে, বেনামে বৈশাখীর মালিক ছিলেন বিএনপি নেতা মির্জা আব্বাস। ১/১১র রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের পর মির্জা আব্বাস বেকায়দায় পড়লে এম শহিদুল্লাহ প্রতিষ্ঠানটির পুরো দায়িত্ব নেন। ওই সময় ডেসটিনি গ্রুপের কাছে বৈশাখীর প্রায় ৯০ শতাংশ শেয়ার বিক্রি করে দেয়া হয়। এরপর নতুনভাবে যাত্রা শুরু করে বৈশাখী।

পক্ষান্তরে গ্রাহকের কাছ থেকে হাজার কোটি টাকা হাতিয়ে বিদেশে পাচার করার অভিযোগে ডেসটিনি ও বৈশাখী টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক রফিকুল আমীন গ্রেপ্তার হন। এরপর থেকেই আর্থিক সঙ্কটে পড়ে বৈশাখীও। তবে ডেসটিনির সব ব্যাংক একাউন্ট জব্দ হলেও বৈশাখী টিভির ব্যাংক একাউন্টটি এখনো খোলা আছে। তার পরও উদ্যোক্তারা এখন আর বৈশাখীর মালিকানা রাখতে চাচ্ছেন না।

ডেসটিনির একটি সূত্র জানিয়েছে, আগ্রহী অনেক ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেই তাদের কথা হয়েছে। এরমধ্যে এইচআরসি গ্রুপের সাঈদ হোসেন চৌধুরীর সঙ্গে আলোচনাটা প্রায় চূড়ান্ত বলেও জানাচ্ছে সূত্রটি।

এ ব্যাপারে বৈশাখী টেলিভিশনের প্রধান সম্পাদক ও প্রধান নির্বাহী মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল জানিয়েছেন, শেয়ার বিক্রির বিষয়ে আমি এখনও কিছু জানি না। আর যারা বিক্রি করবেন তারা তো হাজতে রয়েছেন। তাই শেয়ার বিক্রি করতে চাইলেও এটা কতটুকু সম্ভব আমার জানা নেই।

অবশ্য দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) বলছে, ডেসটিনি গ্রুপ চাইলেও এ মুহূর্তে বৈশাখী টিভির শেয়ার বিক্রি করতে পারবেন না। ডেসটিনি গ্রুপের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের অনিয়মের তদন্ত চলছে। তাছাড়া মালিকপক্ষের অনেকে হাজতে আছেন। এ পরিস্থিতিতে আইন অনুযায়ী তারা চাইলেও তাদের মালিকানাধীন কোনো প্রতিষ্ঠানের শেয়ার হস্তান্তর করতে পারবেন না। কিন্তু তারপরও জেন্টেলম্যান এগ্রিমেন্টের মাধ্যমে আপাতত মালিকানা হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে একটি সূত্র নিশ্চিত করেছে।