দিগন্ত টিভির অন্যরকম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

শুক্রবার, আগস্ট ২৩, ২০১৩

:: প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

diganta tvসরকারি আদেশে সাময়িক সম্প্রচার বন্ধ অবস্থায় এবার অন্যরকম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালন করতে যাচ্ছে বেসরকারি স্যাটেলাইট চ্যানেল দিগন্ত টেলিভিশন। আগামী ২৮ আগস্ট পঞ্চম বর্ষে পদার্পন উপলক্ষ্যে চ্যানেল কতৃপক্ষ দুই দিনের কর্মসূচি পালন করবে। তবে, এবারের বর্ষপূর্তি উৎসবের পরিবর্তে পালন করা হবে শোকের আমেজে।

জানা যায়, আগামী ২৮শে আগস্ট দিগন্ত টেলিভিশনের পঞ্চম বর্ষে পদার্পনের দিন পর্যন্ত সরকার সম্প্রচার নিষেধাজ্ঞা না তুলে নিলে চ্যানেলটি তাদের সাময়িক বন্ধের ১১৫ তম দিনও পালন করবে একই সাথে।এ লক্ষ্য দিগন্ত টেলিভিশনের প্রস্তুতি এরই মধ্যে শুরু হয়েছে।

প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর অনুষ্ঠানমালর মধ্যে প্রথম দিনে ২৮ আগস্ট সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত টেলিভিশনের নিজস্ব কার্যালয়ে কেক কাটা ও শুভেচ্ছা বিনিময় করা হবে। অন্যান্য প্রতিষ্ঠা বার্ষিকীর মত এবারও মন্ত্রী, রাজনীতিবিদ, সুশিলসমাজ, পেশাজীবি সংগঠন ও গণমাধ্যম ব্যাক্তিত্বসহ দেশ বরেণ্য ব্যক্তিদের অনুষ্ঠানে আমন্ত্রণ জানানো হবে। দিগন্তের সর্বস্তরের দর্শকদের জন্যও উন্মুক্ত থাকবে অনুষ্ঠান। তবে জমকালো অনুষ্ঠানের পরিবর্তে এবারের অনুষ্ঠানমালায় শোক ও সম্প্রচার চালুর দাবি এবং সাময়িক নিষেধাজ্ঞার বিরুদ্ধে থাকবে কিছুটা প্রতিবাদ।

২৯ আগস্ট দ্বিতীয় দিনের কমূচির মধ্যে জাতীয় প্রেসক্লাবে সকাল ১০টা থেকে ২টা পর্যন্ত প্রতিবাদী অবস্থান ও সংহতি সমাবেশ করবে দিগন্ত পরিবার। এছাড়া, ২৮ ও ২৯ আগস্ট দু’দিন ব্যাপী দেশের জেলা- উপজেলা পর্যায়ে শোভাযাত্রা, প্রতিবাদী অবস্থান ও সংহতি বন্ধন কর্মসূচি পালন করা হবে।

এবারের এই ব্যাতিক্রমী প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে সর্বস্তরের মানুষের অকুন্ঠ সমর্থন থাকবে বলে আশা করছেন দিগন্ত টেলিভিশনের নির্বাহী পরিচালক মাহবুবুল আলম।

তিনি বলেন, ‘সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় এবার জন্মদিনের কেকের গোলাপটি কালো রংয়ের হবে। দাওয়াত কার্ডেও থাকবে প্রতিবাদের ছাপ। অনুষ্ঠানের দিন দিগন্তের সাংবাদিক, কর্মকর্তা ও কর্মচারীরা কালো পোশাক অথবা কালো ব্যাজ ধারন করবেন।’

নির্বাহী পরিচালক আরো বলেন, ‘সত্য ও সুন্দরের পক্ষে জনগণের মাঝে ফিরে আসতে চায় দিগন্ত টেলিভিশন।’ শিগগিরই সম্প্রচারে ফিরে আসার সুযোগ দিতে সরকারের কাছেদাবি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘দেশ ও জনগণের কল্যাণে কাজ করতে চায় দিগন্ত। দেশের স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় বিশ্বাসী এ প্রতিষ্ঠানের প্রতিটি কর্মী সমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়ার লক্ষে কাজ করছে। সম্প্রচার সাময়িক বন্ধ থাকায় দিগন্তের ৫শতাধিক সাংবাদিক, কর্মকর্তা-কর্মচারী প্রায় চার মাস ধরে কর্মহীন রয়েছে। প্রতি মুহুর্তে দিগন্তের সংবাদ ও অনুষ্ঠান দেখা থেকে অগনিত দর্শক বঞ্চিত হচ্ছেন।’

দিগন্তের প্রধান বার্তা সম্পাদক এবিএম জিয়াউল কবীর সুমন বলেন, ‘আমরা সরকারের দিকে তাকিয়ে আছি। প্রস্তুতি নিচ্ছি পুন:সম্প্রচারের অনুমতির পর আরো প্রফেশনাল দৃষ্টিভঙ্গিকে সামনে রেখে দিগন্ত টেলিভিশনের সকল সংবাদকর্মীকে সাথে নিয়ে নতুন কিছু উপহার দিবো। আশা করি সরকার দেশের মানুষের মনোভাব বুঝে দিগন্ত টেলিভিশনকে জনগণের মাঝে ফিরে আসার সুযোগ দেবে।’

উল্লেখ্য, গত ৬ই মে ভোর ৪টা ২৪ মিনিটে দিগন্ত টেলিভিশনের সম্প্রচার মৌখিক নির্দেশে সম্প্রচার সরকার সাময়িকভাবে বন্ধ করে দেয় । এর কয়েক ঘন্টা আগে ইসলামিক টেলিভিশনের সম্প্রচারও বন্ধ করে দেয় সরকার। পরে এসব পদক্ষেপকে সাময়িক বলে জানানো হয়। সে সময় থেকে বেসরকারি এই টেলিভিশন দু’টির সম্প্রচার বন্ধ রয়েছে।