এমপি রনির হামলায় সাংবাদিক আহত

শনিবার, ২০/০৭/২০১৩ @ ৪:১৪ অপরাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম প্রতিবেদন ::

independent(২০ জুলাই ২০১৩)- পটুয়াখালী গলাচিপার সরকার দলীয় সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি ও তার বাহিনীর হামলায় ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের দুই সাংবাদিক আহত হয়েছেন বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। পাশাপাশি ক্যামেরা ও মাইক্রোফোন ভাংচুর করা হয়।

শনিবার দুপুর সোয়া দুইটায় পল্টনের মেহেরবা প্লাজার নবম তলায় রনির মালিকানাধীন অফিসে এই ঘটনাটি ঘটে।

আহতরা হলেন- ইমতিয়াজ আহমেদ সনি (প্রতিবেদক) ও মহসিন বকুল (ক্যামেরাম্যান)। তারা ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশনের তালাশ টিমের সদস্য।

জানা যায়, অপরাধ বিষয়ক অনুষ্ঠান ‘তালাশ’ এর একটি প্রতিবেদন করতে গেলে সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনির ক্ষোভের মুখে পড়েন দুই সাংবাদিক। এ সময় রনি ও তার দলের অন্য সদস্যরা দুই সাংবাদিককে এলোপাতাড়ি মারধর করেন।

খবর পেয়ে র‌্যাব এবং পুলিশ সদস্যরা ঘটনাস্থলে যায় এবং সংবাদকর্মীদেরকে উদ্ধার করে। আহত সাংবাদিকদের স্থানীয় একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। হামলার খবর জানার পরে ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি এবং ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশন এর নেতারা ঘটনাস্থলে যান।

সাংবাদিক ইমতিয়াজ সনি জানান, রাজধানীর মেহেরবা প্লাজায় এমপি গোলাম মওলা রনির অফিসে যান তালাশের কর্মীরা। এমপির সঙ্গে কথা বলার একপর্যায়ে তিনি উত্তেজিত হয়ে ইমতিয়াজের ওপর হামলা করেন। তখন তার পাশে থাকা ক্যাডাররাও ক্যামেরাম্যান মুকুলহ তাদের মারধর করে। একপর্যায়ে ক্যামেরা ও মাইক্রোফোনও ভাঙচুর করা হয়।

এ বিষয়ে গোলাম মাওলা রনি বলেন, ‘বেশকিছু দিন যাবৎ বিভিন্ন টকশোতে আমি শেয়ার মার্কেট নিয়ে কথা বলছি। এতে শেয়ারবাজারে ‘দরবেশ বাবা’ হিসেবে পরিচিত সালমান এফ রহমান ক্ষুব্ধ হন। এ কারণে তার টিভি চ্যানেল ইন্ডিপেনডেন্টের তালাশ টিম আমার নির্বাচনী এলাকায় কাজ করছে এবং আমার আত্মীয় স্বজনদের উল্টাপাল্টা প্রশ্ন করছে। গত তিনচার দিন ধরে তালাশ টিম আমাকে অনুসরণ করছে। আমি যেখানে যাচ্ছি তালাশ টিম আমার পিছু নিচ্ছে এবং আমার আফিসে এসে সকাল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত ক্যামেরা নিয়ে বসে থাকে।

তিনি আরও বলেন, তারা আমার আফিসের ফ্রন্ট ডেস্কে কর্মরত আবু বকরের কাছে পাঁচ লাখ টাকা দাবি করে। আজ (শনিবার) সকালেও তারা আমার অফিসে এসে বসে থাকে। আমি তাদের দেখে জিজ্ঞাসা করি আপনারা কারা, এখানে বসে আছেন কেন?’ জবারে তারা উত্তেজিত হয়ে বলে আপনার কাছে যা দাবি করেছি, তা দিলেন না কেন? এক পর্যায়ে তারা উত্তেজিত হয়ে আমাকে গালাগালি করে। পরে আমার সঙ্গে থাকা লোকজন তাদের নিবৃত করার চেষ্টা করে। হৈ চৈ শুনে বিভিন্ন ফ্লোরের লোকজন সেখানে উপস্থিত হয় এবং ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের কথা শুনে তারাও ক্ষুব্ধ হয়। এক পর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।’

এদিকে এ ঘটনায় সংসদ সদস্য গোলাম মওলা রনির বিরুদ্ধে হত্যাচেষ্টার অভিযোগে মামলা করা হয়েছে। ইন্ডিপেনডেন্ট টেলিভিশনের সহকারী ব্যবস্থাপক ইউনুছ আলী বাদী হয়ে শনিবার বিকেলে মামলাটি করেছেন বলে জানা গেছে।

শাহবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সিরাজুল ইসলাম জানান, মামলায় রনিসহ অজ্ঞাত পরিচয় ২০ থেকে ২৫ জনকে আসামি করা হয়েছে। মামলায় হত্যাচেষ্টা, মারধর ও ভাঙচুরের অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে শনিবার সকালে সরকার দলীয় সংসদ সদস্য গোলাম মাওলা রনি তার সম্পাদিত ডিনিউজে ‘দরবেশ কি আমাকে গুলি করে মারতে চান?’ শিরোনামে একটি কলাম লিখেন। ইন্ডিপেন্ডেন্ট টেলিভিশন ও এর মালিক সম্পর্কে রণি তার ব্যক্তিগত মতামত দিয়েছেন লেখাটিতে।

লেখাটি পড়তে চাইলে ক্লিক করুন এখানে।

সর্বশেষ