মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি পর্যন্ত আমার দেশ বন্ধ

শুক্রবার, ২৮/০৬/২০১৩ @ ৬:৩৭ অপরাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

(২৮ জুন ২০১৩)- আদালতে বিচারাধীন মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত দৈনিক আমার দেশ বন্ধ থাকবে বলে সংসদে জানিয়েছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। ইসলামিক টিভি, দিগন্ত টিভি এবং দৈনিক আমার দেশ পত্রিকা সাময়িক বন্ধের কারণ সম্পর্কে তিনি বলেছেন, ‘ওই দু’টি টিভি তথ্য মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রদত্ত অনাপত্তির শর্ত ভঙ্গ করেছে। তবে টিভি চ্যানেল দু’টি পুনরায় চালুর বিষয়টি পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে।’

বৃহস্পতিবার জাতীয় সংসদ অধিবেশনে লিখিত প্রশ্নোত্তরে তিনি এ কথা বলেন।

বিরোধী দলীয় সদস্য এবিবএম আশরাফ উদ্দিন নিজানের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, ‘আমার দেশ পত্রিকাটি বন্ধ করা হয়নি। আইন অনুযায়ী জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে ২০১০ সালের ১ জুন পত্রিকাটির ঘোষণাপত্র বাতিল করা হয়। পরবর্তীতে আদালতের নির্দেশনা মোতাবেক পত্রিকাটির প্রকাশনা অব্যাহত ছিল। কিন্তু ঘোষণাকৃত ছাপাখানা থেকে পত্রিকাটি না ছাপিয়ে এবং কোনো প্রকার অনুমতি না নিয়ে অন্য ছাপাখানা থেকে পত্রিকাটি মুদ্রণ, প্রকাশ, বিতরণ, প্রদর্শন ও বিক্রয় করা হচ্ছিল। এই অভিযোগে ১৩ এপ্রিল রমনা মডেল থানায় মামলা দায়ের করা হয়। বিচারাধীন মামলার চূড়ান্ত নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত পত্রিকাটি প্রকাশিত হচ্ছে না।’

অপর এক প্রশ্নের জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ইসলামিক টিভি ও দিগন্ত টিভি তথ্য মন্ত্রণালয়ের অনাপত্তির শর্ত ভঙ্গ করেছে। অসত্য, নীতি বিবর্জিত ও ধর্মীয় উন্মাদনা সৃষ্টি করে খবর প্রচার করে জনসাধারণের মধ্যে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করায় এ দু’টি টিভি চ্যানেল সাময়িকভাবে বন্ধ করা হয়েছে।

আওয়ামী লীগের বেনজির আহমদের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী সংসদকে জানান, দেশে বর্তমানে ৬৩টি অনলাইন পত্রিকা, ৩০টি অনলাইন টিভি চ্যানেল এবং ১৮টি অনলাইন রেডিও রয়েছে। বর্তমানে অনলাইন গণমাধ্যম পরিচালনার কোনো নীতিমালা নেই। এই বিষয়ে নীতিমালা প্রণয়নের জন্য প্রধান তথ্য অফিসারকে আহ্বায়ক করে একটি কমিটি গঠন করা হয়েছে।

বিএনপির শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানীর প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, দেশের ৯৭ ভাগ অঞ্চল এবং জনগোষ্ঠীকে টিভি সম্প্রচার নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়েছে। বর্তমানে ময়মনসিংহ ও গোপালগঞ্জে দু’টি পূর্ণাঙ্গ এফএম বেতারকেন্দ্র স্থাপনের বিষয়টি প্রক্রিয়াধীন রয়েছে।

আওয়ামী লীগের নূরুল ইসলাম সুজনের প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, বিটিভি, বিটিভি ওয়ার্ল্ড ও সংসদ টেলিভিশন নামে তিনটি সরকারি টেলিভিশন চ্যানেল রয়েছে। এছাড়া ২০টি বেসরকারি টিভি চ্যানেল সম্প্রচারে আছে। এছাড়া পরীক্ষামূলক সম্প্রচারে রয়েছে বিজয় টিভি লিমিটেড। তাছাড়া পরীক্ষামূলক সম্প্রচারের অপেক্ষায় আছে গানবাংলা ও দীপ্ত বাংলা নামে আরো দু’টি বেসরকারি টিভি চ্যানেল।