অনলাইনে ফি দিয়ে সংবাদ পাঠকের সংখ্যা বাড়ছে

সোমবার, ২৪/০৬/২০১৩ @ ৮:১০ অপরাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

newspaper_online(২৪ জুন ২০১৩)- অনলাইন সংবাদ মাধ্যমের প্রতি দিন দিন মানুষের আগ্রহ বাড়ছে। বিগত বছরগুলোর তুলনায় অনলাইনে সংবাদ পাওয়ার জন্য মানুষ ফি দিতেও উৎসাহী হয়ে ওঠছে। অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় পরিচালিত একটি জরিপে এ এ তথ্য জানা গেছে।

ওই জরিপে নয়টি দেশের ১১ হাজার মানুষ অংশ নেয়।

জরিপে দেখা গেছে, বৃটেন, ডেনমার্ক, ফ্রান্স ও জার্মানির শতকরা ১১ ভাগ অংশগ্রহণকারী গত বছর অনলাইনে সংবাদ পাওয়ার জন্য ফি দিয়েছেন। অনলাইনে সংবাদ পাওয়ার জন্য অর্থ দেয়ার প্রবণতা বিগত বছরগুলোর তুলনায় তিনগুণ বেড়েছে।

স্পেন, চীন, ইতালি, জাপান ও ব্রাজিলের শহরাঞ্চলে জরিপে অংশ নেয়া শতকরা ২০ শতাংশ মানুষ অনলাইনে সংবাদ পাওয়ার জন্য ফি দেয়।

এদিকে, প্রতিবেদনে দেখা গেছে, বৃটেন ও ডেনমার্কের মতো দেশগুলোতে সংবাদ প্রাপ্তির উৎস হিসেবে মাত্র ২০ শতাংশ অনলাইনের ওপর নির্ভর করে। বাকি ৮০ শতাংশ মানুষ নির্ভর করে প্রচলিত মাধ্যমগুলোর ওপর।

সেই তুলনায় জাপান ও আমেরিকায় অনলাইন সংবাদের গ্রাহকের সংখ্যা অনেক বেশি।

সংবাদ পাওয়ার ক্ষেত্রে বৃটিশরা ব্লগ বা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোর চেয়ে প্রচলিত সংবাদ মাধ্যমগুলোর ওপরই বেশি আস্থাশীল। অন্যদিকে অনলাইন সংবাদমাধ্যম ব্যবহারকারীদের মধ্যে বিবিসি ও স্কাইয়ের মতো ব্রডকাস্টার ওয়েবসাইটগুলোর ওপর শতকরা ৭৯ শতাংশ মানুষ আস্থাশীল। শতকরা ৬০ শতাংশ অনলাইন সংবাদপত্রের ওপর আস্থাশীল।

জরিপে অংশ নেয়াদের মধ্যে ২৫-৩৪ বছর বয়সী তরুণরাই অনলাইন সংবাদের জন্য ফি দিতে বেশি আগ্রহী। কারণ এই বয়সী মানুষদের প্রযুক্তি জ্ঞান ও আর্থিক স্বচ্ছলতা রয়েছে।

অন্যদিকে, জরিপে অংশগ্রহণকারীদের মধ্যে যাদের বয়স ৩০ বছরের নিচে তারা সংবাদ পাওয়ার ক্ষেত্রে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমগুলোকেই বেছে নেয়।

একটি প্রতিবেদনে দেখা গেছে, যারা এখনো অনলাইনে সংবাদ পাওয়ার ক্ষেত্রে কোনো ফি দেয় না, তারাও ভবিষ্যতে ফি দিতে ইচ্ছুক।

ফি দেয়ার প্রধান কারণ হিসেবে তারা জানিয়েছে, যদি তারা জনপ্রিয় ডিজিটাল সংবাদ মাধ্যমগুলো থেকে বিনামূল্যে সংবাদ না পায় তাহলে এর জন্য ফি দিতে তাদের আপত্তি নেই।

জরিপের এই ফলাফল সংবাদপত্র ও ম্যাগাজিন প্রকাশকদের জন্য কিছুটা হলেও আশার আলো দেখাচ্ছে। কারণ মুদ্রণ শিল্প ক্রমাগত ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছে। তাই সংবাদ পরিবেশকরা ডিজিটাল ক্ষেত্রে ব্যাপকহারে বিনিয়োগ করছেন। অধিকাংশ বিনিয়োগকারীই অনলাইনে দেয়া বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে টাকা ফিরে পেতে চাইছেন। প্রতিষ্ঠান টিকিয়ে রাখতে অনেক সংবাদ মাধ্যমই অনলাইনে দেয়া সংবাদের জন্য গ্রাহকদের কাছ থেকে টাকা নিচ্ছে।

মিডিয়া মোঘল রুপার্ড মারডকের ট্যাবলয়েড দ্য সানের সংবাদ ইন্টারনেটে পাওয়ার জন্য চলতি বছরের আগস্ট থেকে গ্রাহকদের প্রতি সপ্তাহে দুই পাউন্ড করে চার্জ দিতে হবে। দ্য টেলিগ্রাফ ও দ্য নিউ ইয়র্ক টাইমস এরইমধ্যে এই ফি দেয়ার পদ্ধতি চালু করেছে।

এ ব্যাপারে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ের রয়টার্স ইনস্টিটিউট ফর দ্য স্টাডি অব জার্নালিজমের প্রধান রবার্ট পিচার্ড জানান, প্রাপ্ত উপাত্ত থেকে দেখা যাচ্ছে, অনলাইনে সংবাদ পাওয়ার ক্ষেত্রে ফি দেয়ার হার বেড়ে যাচ্ছে। তাই সংবাদ পরিবেশকদের আর্থিক প্রত্যাশার ক্ষেত্রে বাস্তববাদী হওয়া উচিত। সূত্র: ওয়েবসাইট