সাংবাদিকতা বিষয়ক গ্রন্থাগার

সোমবার, ০৮/০৭/২০১৩ @ ২:০৬ অপরাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

pib-(০৮ জুলাই ২০১৩)- সংবাদপত্র হচ্ছে জনস্বার্থের অতন্দ্র প্রহরী। কোন বিশেষ জনগোষ্ঠীর স্বার্থরক্ষায় নয়, সংবাদপত্র জনস্বার্থেই সর্বদা কাজ করে। বস্তুনিষ্ঠ সংবাদ পরিবেশনে সরকারিভাবে সাংবাদিক তৈরি করার একমাত্র সরকারি শিক্ষা সংস্থা প্রেস ইনস্টিটিউটি অফ বাংলাদেশ (পিআইবি)। ২০০০-২০০১ থেকে পিআইবি দেশে সাংবাদিক ও গণমাধ্যমকর্মী তৈরিতে ব্যাপক ভyyমিকা রাখছে। তাদের রয়েছে সাংবাদিকতা বিষয়ে ডিজিটাল লাইব্রেরী। যেখানে পাঠক হিসেবে শিক্ষক, সাংবাদিক গবেষক, ও ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতিদিন বিচারণ হয়।

১৯৭৬ সালে পিআইবি যাত্রা শুরু করে। শুরু থেকেই তথ্য মন্ত্রনালয় নিয়ন্ত্রণ করে আসছে। সাংবাদিকতায় দীর্ঘমেয়াদি প্রাতিষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রমের অংশ হিসেবে পিআইবি ২০০০-২০০১ শিক্ষাবর্ষে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্তি নিয়ে এক অ্যাকাডেমিক শিক্ষাবর্ষের (১০ মাস মেয়াদি) সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা কোর্স চালু করে। তৎকালীন প্রতিষ্ঠানের মহাপরিচালকের দায়িত্বে ছিলেন ড. শেখ আব্দুল সালাম ও পরিচালক ছিলেন ভাষাসৈনিক এড. গাজীউলহক। ডিপ্লোমা কোর্সটি ইতোমধ্যে সাংবাদিক, গণমাধ্যমকর্মী ও সাধারণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া জাগাতে সক্ষম হয়েছে। সাংবাদিকতায় স্নাতকোত্তর ডিপ্লোমা কোর্সের পাশের হার ৯৯% এবং শিক্ষার্থীদের প্রায় সকলেই গণমাধ্যমের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ শাখায় কর্মরত আছেন।

গণমাধ্যম ও সাংবাদিকতায় শিক্ষার্থীদের তথ্যের যোগান দিতে পিআইবিতে রয়েছে বিপুল বইয়ের সমারহে বৃহত্তর গ্রন্থাগার। এই গ্রন্থাগারের দায়িত্বে রয়েছেন নমিতা আখতার তার সাথে আলাপ হলে বলেন, আমি ১২ বছর যাবৎ এই প্রতিষ্ঠানে কর্মরত রয়েছি এবং লাইব্রেরির শুরু থেকেই আমি দায়িত্ব পালন করছি। মূলত পিআইবি-র গ্রন্থাগার হচ্ছে একটি স্পেশাল লাইব্রেয়ি। আমি মনে করি সাংবাদিকদের একটি বিশেষ গ্রন্থাগার দরকার এবং তার সর্বোত্তম যোগান দিচ্ছে আমাদের গ্রন্থাগার। এখানে শিক্ষক, সাংবাদিক, গবেষক, ছাত্রছাত্রীসহ সমাজের সুশীল পাঠক সকাল নয়টা থেকে পাঁচটা পর্যান্ত সমাগম হয় প্রতিদিন।

তিনি বলেন, দেশের মানুষকে শিক্ষিত করতে সকল গ্রন্থাগার ডিজিটালাইজ করা দরকার। সাংবাদিকতায় স্নাতক ডিপ্লোমা চালুর সাথে সাথেই ভবনের ৪র্থ তলায় সাংবাদিকতার বিপুল বইয়ের সংগ্রহে গড়ে ওঠে বিশেষ গ্রন্থাগার।

বাংলাদেশ প্রেস ইনস্টিটিউটের গ্রন্থাগার সংবাদপত্র ও গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট প্রকাশনা সংগ্রহে সমৃদ্ধ একটি বিশেষ ধরনের গ্রন্থাগার। সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম সংশ্লিষ্টদের চাহিদা পূরণে, অধ্যয়নস্পৃহা ও মননশীলতাকে বাস্তবমুখী করার সুদূরপ্রসারী লক্ষ্য পূরণকল্পে এই গ্রন্থাগারটি প্রতিষ্ঠা হয়। দেশে বিদ্যমান গণমাধ্যমসমূহের চাহিদা অনুক‚ল আধুনিক গ্রন্থাগার হিসেবে পিআইবি গ্রন্থাগারের উদ্দেশ্য, কর্মপরিধি এবং সর্বোপরি-এর সংগ্রহ ও সেবার মান নানাভাবে বৈশিষ্ট্যমন্ডিত। পিআইবি প্রতিষ্ঠার সূচনালগ্নে এই গ্রন্থাগারটি মাত্র এক কক্ষ বিশিষ্ট ক্ষুদ্র পরিসরে পরিব্যাপ্ত থাকলেও বর্তমানে ভবনের ৪র্থ ও ৫ম তলায় আধুনিক গ্রন্থাগারের সকল সুযোগ-সুবিধা নিয়ে পরিচালিত হচ্ছে।

শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত দুটি তলায় গ্রন্থাগারের দুটি শাখা কাজ করছে। গ্রন্থাগারের ৪র্থ তলায় রয়েছে বই শাখা এবং ৫ম তলায় রয়েছে নিউজপেপার আর্কাইভস শাখা। সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট বইসহ অত্যাধুনিক এই গ্রন্থাগারটিতে সামাজিক বিজ্ঞানের বিভিন্ন শাখার বইয়েরও পর্যাপ্ত সংগ্রহ রয়েছে। নিউজপেপার আর্কাইভস শাখায় জাতীয়, আন্তর্জাতিক ও আঞ্চলিক পত্রিকারও একটি বিশাল সংগ্রহ রয়েছে। গ্রন্থাগারে প্রতিদিন দেশি-বিদেশি ২৭টি দৈনিক পত্রিকা বাঁধাই করে সংরক্ষণ করা হয়। এর মধ্যে ১৮টি বাংলা এবং ৯টি ইংরেজি দৈনিক। এছাড়াও দেশি-বিদেশি ১৩টি ম্যাগাজিন সংরক্ষণ করা হয় এ গ্রন্থাগারে। ম্যাগাজিনগুলোর মধ্যে ৬টি বাংলা এবং ৮টি ইংরেজি। এছাড়া চারটি দৈনিক পত্রিকা ডিজিটাল ফর্মেটে সিডিতে সংরক্ষণ করা হচ্ছে। এখান থেকে পাঠকরা প্রয়োজনীয় তথ্যের প্রিন্ট আউট নিতে পারেন।

দৈনিক ইংরেজি পত্রিকার সাংবাদিক মাহাবুবুর রহমান বলেন, আমি প্রতিদিন এই গ্রন্থাগারে আসি, আমার পেশার সকল বই এই গ্রন্থাগারে পাই, যা আর কোথাও কোনো গ্রন্থাগারে পাওয়া যায় না। এখানে ইংরেজি ও বাংলা বিভিন্ন বইয়ের সমাহারে সমৃদ্ধ সকল বুক সেল্ফ। তাই প্রায় প্রতিদিনই আমাকে এখানে আসতে হয় সেসব বই পড়তে। কম্পিউটার সফটওয়্যারের মাধ্যমে গ্রন্থাগারের বই এবং পত্র-পত্রিকার তথ্যসমূহের বিবরণী ও গ্রাফিক ডাটাবেইজ সংরক্ষণ করা হচ্ছে।

এই ডাটাবেইজ লোকাল এরিয়া নেটওয়ার্ক (এলএএন)-এর মাধ্যমে পিআইবির সকল কম্পিউটারে কাংখিত তথ্য অনুসন্ধানের সুবিধা দিতে সক্ষম। আধুনিক এই গ্রন্থাগারটি সাইবার কর্নারের মাধ্যমে অব্যাহতভাবে পাঠকদের ইন্টারনেট সেবা দিচ্ছে। পিআইবি গ্রন্থাগারটি শুরুতে গণযোগাযোগ, সাংবাদিকতা ও গণমাধ্যম সংশ্লিষ্ট ৯৩১টি বই নিয়ে যাত্রা শুরু করলেও বর্তমানে এই গ্রন্থাগারে প্রায় ১১ হাজার বইয়ের সংগ্রহ রয়েছে। এ বইগুলোর দ্বি-ভাষিক (বাংলা ও ইংরেজি) বিবলিওগ্রাফিক ডাটাবেইজ তৈরি করা হয়েছে এবং দ্বি-ভাষিক সফ্টওয়্যারের মাধ্যমে পিআইবি গ্রন্থাগারে বইয়ের নেটওয়ার্কভিত্তিক ডাটাবেইজ সংরক্ষণ করা হয়।