জাতীয় প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের ওপর হামলা

বৃহস্পতিবার, মে ২৩, ২০১৩

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

image_38998পেশাগত দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে এবার খোদ জাতীয় প্রেসক্লাবে হামলার শিকার হয়েছেন সাংবাদিকরা। প্রতিবাদ করতে গেলে গুলি করে হত্যার করার হুমকি দেন অভিযুক্ত স্বেচ্ছাসেবক দলের শেরেবাংলা নগর থানার সভাপতি রাশেদ।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে ‘ভূঁইফোড়’ সংগঠন বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ভূমিহীন দলের এক অনুষ্ঠানে এ অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটে। এসময় মঞ্চে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য আ স ম হান্নান শাহসহ জেষ্ঠ্য নেতারা উপস্থিত থাকলেও তারা কোনো প্রতিবাদ করেননি।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেলা সাড়ে ১১টায় জাতীয় প্রেসক্লাবের ২য় তলায় বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ভূমিহীন দল এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। সাংবাদিকরা তাদের জন্য সংরক্ষিত চেয়ারে বসে অনুষ্ঠান কাভার করছিলেন। আলোচনার মাঝামাঝি সময়ে চ্যানেল২৪ এর স্টাফ রিপোর্টার মহসিনুর রহমান বাদল অনুষ্ঠান সংক্ষিপ্ত করার জন্য প্রধান অতিথি হান্নান শাহকে অনুরোধ করতে মঞ্চের দিকে যান। ফলে বাদলের চেয়ার ফাঁকা হয়।

অনুষ্ঠানে আসা স্বেচ্ছাসেবক দলের শেরেবাংলা নগর থানার সভাপতি রাশেদ ও তার সহযোগীরা বাদলের চেয়ারে বসতে চাইলে পাশে বসে থাকা এনটিভির সিনিয়র রির্পোটার ইমরুল আহসান জনি বাদল আসছে জানিয়ে চেয়ারে না বসার অনুরোধ জানান। এতে রাশেদ ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিকদের নিয়ে উচ্চ আওয়াজে বিভিন্ন করুচিপূর্ণ কথা বলতে শুরু করেন। জনি প্রতিবাদ করলে রাশেদ ও তার সহযোগীরা এগিয়ে এসে তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেন ও গুলি করে হত্যার হুমকি দেন।

এ ঘটনায় অন্যান্য সাংবাদিকরা প্রতিবাদ করলে উপস্থিত বিএনপির ঢাকা মহানগর সদস্য সচিব আবদুস সালাম কৌশলে রাশেদকে রুম থেকে বের করে দেন। যাওয়ার আগে রাশেদ ও তার সহযোগীরা সাংবাদিকদের শাসিয়ে যান।

ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিকরা তাদের দিকে এগিয়ে গেলে আয়োজকরা বাঁধা দেন। এ সুযোগে রাশেদ সহযোগীদের নিয়ে পালিয়ে যান। পরে বিএনপি চেয়ারপারসনের ব্যক্তিগত ফটোগ্রাফার নুর উদ্দিন নুরু বিষয়টি মিমাংসার উদ্দ্যোগ নিয়ে ব্যর্থ হন।

এ ঘটনার প্রতিবাদে উপস্থিত সাংবাদিকরা অনুষ্ঠানের সংবাদ বর্জন করেন। এমন অনাকাঙ্খিত ঘটনায় ক্ষোভ প্রকাশ করে তারা অভিযুক্ত রাশেদের শাস্তি দাবি করেন।

এ বিষয়ে দৃষ্টি আকর্ষণ করা হলে ঢাকা মহানগর উত্তর স্বেচ্ছাসেবক দলের সভাপতি ইয়াসিন আলী মুঠোফোনে জানান, সংগঠনের কেন্দ্রীয় সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে কথা বলে অভিযুক্ত রাশেদকে দল থেকে বহিষ্কার করা হবে।

পরে এ ঘটনায় সাংবাদিকদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন আয়োজক কমিটির সভাপতি কামাল উদ্দিন আহমেদ ও উপস্থিত বিএনপি নেতারা।
সূত্র: বাংলামেইল।