আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া বাসস’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক

বৃহস্পতিবার, ১৬/০৫/২০১৩ @ ৬:০১ পূর্বাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

azizul islamসরকার বিশিষ্ট সাংবাদিক আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়াকে বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা (বাসস)’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান সম্পাদক নিয়োগ করেছে। এর আগে তিনি একই পদে চলতি দায়িত্বে ছিলেন। বুধবার এক সরকারি প্রজ্ঞাপনে এ কথা বলা হয়।

মুক্তিযোদ্ধা আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া ১৯৭৩ সালে বাসস-এ যোগ দেন এবং ব্যবস্থাপনা সম্পাদক, প্রধান প্রতিবেদক, বিশেষ সংবাদদাতা, বার্তা সম্পাদক, প্রধানমন্ত্রীর মিডিয়া টিমের বিশেষ সংবাদদাতা ও ব্যুরো চিফসহ বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালন করেছেন।

আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া ১৯৫২ সালে বরিশালে জন্মগ্রহণ করেন এবং বরিশাল জিলা স্কুল, বিএম কলেজ ও ভোলা কলেজ থেকে এসএসসি, এইচএসসি ও বিএসসি ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাণীবিজ্ঞান বিভাগে এমএসসি (প্রিলিমিনারি) অধ্যয়ন এবং একই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগে মাস্টার্স ডিগ্রি অর্জন করেন। তিনি কলম্বো স্কলারশিপের অধীনে নয়া দিল্লির ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব মাস কমিউনিকেশন (আইআইএমসি) থেকে উচ্চতর ডিপ্লোমা ডিগ্রি লাভ করেন।

আজিজুল ইসলাম ১৯৭১ সালে মহান মুক্তিযুদ্ধে ভারতের দেরাদুনে টান্ডুয়া সামরিক একাডেমিতে সামরিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ এবং মুজিব বাহিনী নামে খ্যাত বাংলাদেশ লিবারেশন ফোর্স (বিএলএফ)’র যুদ্ধকালীন কমান্ডারের দায়িত্ব পালন করেন। তিনি একজন দক্ষ ট্রেড ইউনিয়ন সংগঠক এবং চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়ন (সিইউজে)’র সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন (ডিইউজে)’র সাধারণ সম্পাদক এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে)’র নির্বাহী কমিটির সদস্যসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেন।

আজিজুল ইসলাম ভূঁইয়া ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সিনেটের সাবেক সদস্য এবং বাংলা একাডেমির আজীবন সদস্য। তিনি বেশ কয়েকটি গ্রন্থের রচয়িতা। তিনি চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক বিজয় মেলার প্রতিষ্ঠাতা সদস্যসচিব। তার এই উদ্যোগ দেশে-বিদেশে অগ্নিস্ফূলিঙ্গের মতো ছড়িয়ে পড়েছিল। তিনি দেশে-বিদেশে বহু আন্তর্জাতিক অনুষ্ঠানের সংবাদ সংগ্রহ করেছেন এবং পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য, ফ্রান্স, জার্মানি, অস্ট্রেলিয়া, ডেনমার্ক, তুরস্ক, সৌদি আরব, কুয়েত, কাতার, মরক্কো, ভারত ও পাকিস্তানসহ বিভিন্ন দেশ ভ্রমণ করেছেন।

তার সহধর্মিণী ডালিয়া জামান চৌধুরীও একজন পেশাদার সাংবাদিক এবং তাদের একমাত্র পুত্র তাজিন শহীদ অনিক যুক্তরাষ্ট্রের সিয়েটলে মাইক্রোসফট ফাউন্ডেশনের প্রধান কার্যালয়ে কম্পিউটার বিজ্ঞানী হিসাবে কর্মরত। সূত্র: বাসস।