পাবনা প্রেসক্লাব: গৌরবের ৫২ বছর

বুধবার, ০১/০৫/২০১৩ @ ৭:৫১ পূর্বাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক::

Pabna-Press-Club-Photo.সাংবাদিকতার গৌরব ও অহংকারের নাম পাবনা প্রেসক্লাব। ১ মে বুধবার পাবনা প্রেসক্লাব পা রাখছে ৫৩ বছরে। ৫২ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে পাবনা প্রেসক্লাবের উদ্যোগে আলোচনা সভা ও কেক কাটার আয়োজন করা হয়েছে।

১৯৬১ সালের এদিনে প্রেসক্লাবের গোড়াপত্তন ঘটে। সেই থেকে অনেক স্মৃতি, নানা ইতিহাস ও গৌরবময় ঘটনার সঙ্গে পাবনা প্রেসক্লাবের নাম জড়িয়ে রয়েছে। সারা দেশে সাংবাদিকদের মধ্যে বিভেদ, অনৈক্য থাকলেও পাবনা প্রেসক্লাব সে ক্ষেত্রে ব্যতিক্রম।

পাবনার জনপদে সাংবাদিকতার সূত্রপাত ঘটে উনিশ শতকের প্রথম দিকে। ষাটের দশকের শুরুতে তৃণমূল পর্যায়ের সাংবাদিকতা পেশার স্বীকৃতির দাবিকে সামনে রেখে ১৯৬১ সালের ১ মে পাবনা শহরে স্থাপিত হয় পাবনা প্রেসক্লাব।

পাবনা থেকে প্রকাশিত সাপ্তাহিক ‘পাক হিতৈষী’র প্রকাশক-সম্পাদক, দৈনিক আজাদ ও অ্যাসোসিয়েটেড প্রেস অব পাকিস্তানের পাবনা প্রতিনিধি একেএম আজিজুল হক (বিএসসি ক্যাল) এর সভাপতিত্বে তার বাসা সানভিউ ভিলায় অনুষ্ঠিত এক সভায় তিনিই (একেএম আজিজুল হক) পাবনা প্রেসক্লাবের প্রথম সভাপতি এবং সেসময়ের সংবাদ প্রতিনিধি শ্রী রণেশ মৈত্র সাধারন সম্পাদক নির্বাচত হন।

এ ছাড়া দৈনিক ইত্তেফাকের পাবনা প্রতিনিধি এম আনোয়ারুল হক, বিশিষ্ট চিকিৎসক মেজর (অব.) ডা. মোফাজ্জল হোসেন, শিক্ষক শহীদ মাওলানা কছিমুদ্দিন আহমেদ, ফটোগ্রাফার শ্রী হিমাংশু কুমার বিশ্বাস প্রমুখ অন্যতম প্রতিষ্ঠাকালীন সদস্য ছিলেন। বর্তমানে পাবনা প্রেসক্লাবের সদস্য সংখ্যা ৫৮।

পরিকল্পনামন্ত্রী এয়ার ভাইস মাশাল (অব.) একে খন্দকার, স্কয়ার গ্রুপের প্রয়াত চেয়ারম্যান স্যামসন এইচ চৌধুরী, ভাষা সৈনিক আব্দুল মতিন, স্কয়ার টয়লেট্রিজের ব্যবস্থাপনা পরিচালক অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু এবং দুর্নীতি দমন কমিশনের কমিশনার মুহম্মদ শাহাবুদ্দিন চুপ্পু পাবনা প্রেসক্লাবের সম্মানিত আজীবন সদস্য হিসেবে রয়েছেন।

প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠার বছর ৮-৯ মে পাবনায় অনুষ্ঠিত হয় পূর্ব পাকিস্তান মফস্বল সাংবাদিক সম্মেলন। যে সভা থেকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ পায় পূর্ব পাকিস্তান মফস্বল সাংবাদিক সমিতি যা বর্তমানে বাংলাদেশ সাংবাদিক সমিতি হিসেবে পরিচিত।

সেই সম্মেলনের মাধ্যমে মফস্বল সাংবাদিকরা পেশার স্বীকৃতি তথা রিটেইনার, লাইনেজ, পোষ্টাল চার্জ, টেলিগ্রাম চার্জ, ছবির বিলসহ অন্যান্য খরচ পাওয়া শুরু করেন। পাবনা প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠার মধ্যে দিয়েই সেদিন সংবাদপত্রে মফস্বলে কর্মরত প্রতিনিধিদের পেশার স্বীকৃতি ঘটেছিল।

পাবনা প্রেসক্লাব প্রতিষ্ঠার পর একেএম আজিজুল হক পাবনা প্রেসক্লাবের প্রথম সভাপতি এবং সংবাদ প্রতিনিধি শ্রী রণেশ মৈত্র প্রথম সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে এম আনোয়ারুল হক, মির্জা শামসুল ইসলাম, প্রফেসর আব্দুস সাত্তার বাসু, অঞ্জন চৌধুরী পিন্টু, রবিউল ইসলাম রবি, অ্যাডভোকেট মুহম্মদ মহিউদ্দিন, অধ্যাপক শিবজিত নাগ, আব্দুল মতীন খান, রুমী খন্দকার, এবিএম ফজলুর রহমান, উৎপল মির্জা বিভিন্ন সময় এক বা একাধিকবার সভাপতি ও সাধারন সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেছেন।

বর্তমান সভাপিত পদে অধ্যাপক শিবজিত নাগ ও সম্পাদক পদে আহমেদ উল হক রানা দায়িত্ব পালন করছেন।

পাবনা প্রেসক্লাবের অতীত ঐতিহ্য ও বিশাল ইতিহাস থাকলেও আজও পাবনা প্রেসক্লাবের নিজস্ব ভবন হয়নি। পরিত্যক্ত সম্পত্তির উপর গড়ে উঠা এই ক্লাবটির শরীরে শীর্ণতা থাকলেও মর্যাদা ও আভিজত্যে এখোনো অটুট। সম্প্রতি ঐ পরিত্যক্ত ভবনেই একটি অত্যাধুনিক অফিস কক্ষ, ভিআইপি মিলনায়তন, সাধারণ মিলনায়তন এবং লাইব্রেরী প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে।

পাবনা প্রেসক্লাবের সম্পাদক আহমেদ উল হক রানা জানান, ‘৫২ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে ১ মে বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে সাতটায় প্রেসক্লাবের ভিআইপি মিলনায়তনে কেক কাটা, মিষ্টি মুখ ও আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়েছে।

সর্বশেষ