নিউ ইয়র্ক থেকে চালু হচ্ছে ২৪ ঘণ্টার এবিটিভি

শুক্রবার, ১৯/০৪/২০১৩ @ ৭:৫৬ অপরাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক::

ab tv logoআমেরিকায় বসবাসকারী প্রবাসী বাঙালিদের কথা বলতে শিগগিরই নিউ ইয়র্ক থেকে যাত্রা শুরু করছে আমেরিকা-বাংলাদেশ টেলিভিশন- (এবি টিভি)। টেলিভিশন চ্যানেলটির প্রস্তুতির কাজ প্রায় গুছিয়ে এনেছেন উদ্যোক্তারা। আগামী মাস থেকেই বড় পরিসরের এই টেলিভিশনটির পরীক্ষামূলক সম্প্রচার শুরু হবে বলে আশা করছেন সংশ্লিষ্টরা।

উদ্যোক্তারা জানিয়েছেন, ২৪ ঘণ্টার এই টেলিভিশন চ্যানেলে প্রতিদিনই থাকবে খবর। এছাড়া প্রবাসী বাংলাদেশিদের সামাজিক বিনোদন দিতে প্রচারিত হবে বাংলাদেশ ও আমেরিকার সেরা নির্মাতাদের নাটক, টেলিফিল্ম ও চলচ্চিত্র। সচেতন বাঙালিদের জন্য প্রতিদিনই থাকবে আমেরিকা, বাংলাদেশ ও আন্তর্জাতিক সমসাময়িক বিষয়ের ওপর ‘টক শো’এবং বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান। থাকবে শিশু কিশোরদের জন্য অনুষ্ঠান। এসব অনুষ্ঠানে প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যক্তিরা ছাড়াও বাংলাদেশ থেকে আসা অতিথিরা অংশ নেবেন। এছাড়া বিষয়ভিত্তিক অনুষ্ঠান, চাকরির খবর, ক্যারিয়ার গঠন, ইমিগ্রেশন, শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও আইন বিষয়ক নিয়মিত অনুষ্ঠান প্রচার করবে এবি টিভি।

নিউ ইয়র্কসহ আমেরিকার বিভিন্ন অঙ্গরাজ্য থেকে বিভিন্ন অনুষ্ঠান ও উৎসব সরাসরি সম্প্রচার করবে এবিটিভি। প্রতিদিনই থাকবে প্রবাসীদের বিভিন্ন কর্মকাণ্ড, সাফল্য, বিভিন্ন সোসাইটির অনুষ্ঠান, অপরাধ, সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ড নিয়ে বিশেষ প্রতিবেদন।

ঢাকাতেও ব্যুরো অফিস স্থাপন করেছে এবিটিভি। দেশের আনাচে কানাচের স্বজনদের খবর প্রবাসীদের সামনে তুলে ধরতে কাজ করবে ব্যুরো অফিসটি। জিটিভি’র প্রধান প্রতিবেদক রকিবুল ইসলাম মুকুল ব্যুরো প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালন করবেন। তার নেতৃত্বে কাজ করবেন দেশের খ্যাতিমান টিভি রিপোর্টাররা।

নিউ ইয়র্কের বাঙালিপাড়া বলে খ্যাত জ্যাকসন হাইটস সংলগ্ন ব্রডওয়ে এলাকায় স্থাপন করা হয়েছে এবিটিভির মূল অফিস। বাংলাদেশের খ্যাতিমান টিভি সাংবাদিক ফরিদ আলম এবিটিভির সার্বিক দায়িত্বে থাকছেন।

নিউ ইয়র্কের তরুণ সাংবাদিক রিজু মোহাম্মেদ ও সাজ্জাদ হোসেনসহ আরো অনেকেই থাকছেন এবিটিভি পরিবারের সঙ্গে। এছাড়া নিউ ইয়র্কে বসবাসকারী সাংবাদিক, সম্প্রচার বিশেষজ্ঞ ও প্রকৌশলী এবং শিল্পী-সাহিত্যিকরা সম্পৃক্ত রয়েছেন এবিটিভিতে।

এবি টিভির উদ্যোক্তা নিউইয়র্ক প্রবাসী বিশিষ্ট ব্যবসায়ী আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, আমেরিকা বিশেষ করে নিউ ইয়র্ক অঙ্গরাজ্য আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপট, ভৌগোলিক অবস্থান এবং বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এলাকা। আমেরিকা বাংলাদেশের অর্থনীতির বড় সহায়ক। রাজনীতি ও নীতি নির্ধারণী বিষয়ে রয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের বড় ভূমিকা। প্রতি বছরই বাংলাদেশের সরকার প্রধান ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিরা আমেরিকা আসেন। প্রতিবছরই অসংখ্য সাংবাদিক তাদের পেশাগত কাজেও আমেরিকা ভ্রমণে আসেন। বাংলাদেশের মানুষ এখানে বসবাস করলেও দেশের রাজনীতি, অর্থনীতি, সামাজিক, সাংস্কৃতিক বিষয়ে খুব একটা খবর জানার সুযোগ তাদের হয় না। এর অন্যতম কারণ দিন-রাতের বিশাল ব্যবধান। তাছাড়া বাংলাদেশের সামগ্রিক বিষয়ে টিভি বা পত্রিকার মাধ্যমে যতটুকু জানার সুযোগ হয় তা নিয়ে নিজেদের মত প্রকাশের কোনো মাধ্যম নেই বললেই চলে। প্রবাসীরা তাদের মতামতও তুলে ধরতে চান, বলতে চান কিন্তু নানা কারণেই সেটা সম্ভব হয় না। আর সেটাকে সম্ভব করতেই এবিটিভি চালু করার কথা চিন্তা করেন আব্দুল্লাহ আল মামুন।

অন্যদিকে, আমেরিকায় লাখো বাঙালি তাকিয়ে থাকেন বাংলাদেশের স্বজনদের খবর জানতে। সেইসঙ্গে বাঙালি সংস্কৃতির বিকাশ এবং প্রবাসীদের ২৪ ঘণ্টার খবর বা বিনোদন দিতে এখানে টিভিমাধ্যম নেই বললেই চলে। এসব বিষয় মাথায় রেখেই এবিটিভি কাজ করবে এবং এটি প্রবাসী বাঙালিদের প্রাণের এবং পারিবারিক টেলিভিশন হিসেবে জায়গা করে নিতে পারবে বলে উদ্যোক্তাদের বিশ্বাস।

ফরিদ আলম জানিয়েছেন, বাংলাদেশের ব্যুরো অফিস ছাড়াও বিশ্বের বাংলা ভাষার মানুষ যেখানে আছে সেখানেই অফিস স্থাপন করা হবে। বিশ্বের সব দেশের খবর কভারে থাকবে নিজস্ব প্রতিবেদক।