আমেরিকায় আল জাজিরা টেলিভিশন

বৃহস্পতিবার, ১০/০১/২০১৩ @ ১০:৫৭ অপরাহ্ণ

aljzajiraপ্রেস বার্তা ডেস্ক:
টিভি চ্যানেলটা নাকি সন্ত্রাসমূলক কর্মকাণ্ডের পরোক্ষ প্রেরণাদাতা৷ বিশেষ করে পশ্চিমা বিশ্বের কিছু দেশে এ অপবাদ ঘোচানোর চেষ্টা করছে আল জাজিরা৷ দর্শক পাওয়া সবচেয়ে কঠিন যেখানে, সেই যুক্তরাষ্ট্রেই কাজ শুরু করেছে তারা৷
কাতারের রাজ পরিবারের চ্যানেল ‘আল জাজিরা’৷ তারাই নিয়ন্ত্রণ করেন চ্যানেলটি৷ এবার যুক্তরাষ্ট্রের ‘কারেন্ট টিভি’-কে কিনে সে দেশেও ঢুকে পড়েছে আল জাজিরা৷ কিনতে খরচ কত পড়েছে তা নিশ্চিত করে বলা যাচ্ছে না৷ বার্তা সংস্থা ডিপিএ-র দেয়া খবর অনুযায়ী, যুক্তরাষ্ট্রের চ্যানেলের মালিকপক্ষকে আনুমানিক ৫০০ মিলিয়ন ডলার দিয়েছে কাতারের এই চ্যানেলটি৷

কিন্তু এত খরচ করে যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে ঢুকে কি লাভ হবে? দর্শকদের মন ভরাতে পারবে আল জাজিরা? চ্যানেলের মহাপরিচালক আহমেদ বিন জসিম আল-থানি আশাবাদি৷ ডিপিএ-কে এ বিষয়ে তিনি বলেছেন, ‘‘আমরা সারা বিশ্বের সব খবরের গভীরে গিয়ে যেভাবে তা পরিবেশন করি সেটা যুক্তরাষ্ট্রের দর্শক ইতিমধ্যে পছন্দ করতে শুরু করেছে৷”

আল জাজিরা যে মনে করছে যুক্তরাষ্ট্রে তারা জনপ্রিয় হতে পারবে, তার একটা কারণও আছে৷ এ মুহূর্তে যুক্তরাষ্ট্রের ৪৭ লাখ ঘরে দেখা হচ্ছে এ চ্যানেল – আর এটাই এতটা আশাবাদী করছে চ্যানেল কর্তৃপক্ষকে৷ কিন্তু বাস্তব পরিস্থিত এত সহজ নয়৷ বিবিসি আমেরিকা সেটা টের পাচ্ছে হাড়ে হাড়ে৷ ২ কোটি ৫০ লাখ বাড়িতে প্রবেশাধিকার পেয়েও অনেক মানুষ যে তাদের অনুষ্ঠান দেখছে, এ দাবি কিন্তু করতে পারছে না তারা৷

বিবিসি আমেরিকার বিশ্বময় যতটা গ্রহণযোগ্যতা, অন্য কোনো দেশে আল জাজিরার সে অবস্থা হয়েছে কিনা – এ নিয়ে আলোচনা চলতে পারে, তবে যুক্তরাষ্ট্রে তাদের ভাবমূর্তি যে নেতিবাচক তা অনেকেরই জানা৷ ‘দ্য আল জাজিরা এফেক্ট’ গ্রন্থের লেখক ফিলিপ সেব ‘দ্য নিউইয়র্ক টাইমস’-কে বলেছেন, ‘‘এখনো এমন অনেকেই আছেন যাঁরা চ্যানেলটি দেখবেন না, যারা বলবেন এটা টেররিস্ট নেটওয়ার্ক৷ কাজেই আল জাজিরাকে ভালো কাজ দেখিয়ে এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে৷” সূত্র: ডিপিএ।