মাহমুদুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদে বিভ্রান্তিতে ডিবি !

বুধবার, ১৭/০৪/২০১৩ @ ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক::

mahmudur rahman-2বহুল আলোচিত দৈনিক আমার দেশ পত্রিকার ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক মাহমুদুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদে বিভ্রান্তিতে পড়ছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ। তাকে যে প্রশ্ন করা হচ্ছে- তার সব দায় মাথা পেতে নিচ্ছেন তিনি। ফলে ডিবি পুলিশ বুঝতে পারছে না আসলে তিনি কোনো ঘটনার সঙ্গে কতটুকু জড়িত। ডিবি’র একটি সূত্র এমন তথ্য জানিয়েছে।

গত বৃহস্পতিবার সকাল নয়টায় আমার দেশ পত্রিকা অফিস থেকে গ্রেফতার করা হয় মাহমুদুর রহমানকে। এর পর তাকে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ কার্যালয়ে ১৩ দিনের রিমান্ডে নেওয়া হয়। রাজধানীর মিন্টো রোডে ডিবি কার্যালয়ে তাকে দফায় দফায় জিজ্ঞাসাবাদ করছেন গোয়েন্দারা। ইতোমধ্যে তার ৪ দিনের রিমান্ড জিজ্ঞাসাবাদ শেষ হয়েছে। এর মধ্যে পয়লা বৈশাখের দিন জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়নি। সে দিন পয়লা বৈশাখের নিরাপত্তার দায়িত্বে ডিবি সদস্যরা ব্যস্ত ছিলেন বলে জানা গেছে।

ডিবি সূত্র জানায়, ডিবি সদস্যদের একটি দল মাহমুদুর রহমানকে জিজ্ঞাসাবাদ করছে। এর মধ্যে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে- সরকারবিরোধী কোন কোন গোষ্ঠির সঙ্গে তার যোগাযোগ রয়েছে। এছাড়াও স্কাইপ সংলাপ নিয়ে তাকে ব্যাপকভাবে জিজ্ঞাসাব করা হচ্ছে। স্কাইপ সংলাপের অংশ বিশেষ তিনি কার কাছ থেকে কিভাবে পেয়েছেন, সে বিষয়ে তথ্য আদায়ের চেষ্টা করছে ডিবি। তবে তিনি গোয়েন্দা টিমের প্রশ্নের জবাবে বলেছেন, যেসব তথ্য আমার দেশ-এ প্রকাশিত হয়েছে তাতে যথেষ্ট প্রমাণাদি তার কাছে রয়েছে।

জানা গেছে, মাহমুদুর রহমানের কাছে যেসব প্রশ্ন গোয়েন্দারা করছে এর বেশিরভাগ উত্তর এরিয়ে নিজের ওপর দায়ভার নিচ্ছেন। শাহবাগবিরোধী সংবাদ প্রকাশ, হেফাজতে ইসলামের সঙ্গে সম্পৃক্ততা ও সরকারবিরোধী আন্দোলের- সংবাদ সরবরাহে কে কে জড়িত সে বিষয়ে স্পষ্ট জবাব দিচ্ছেন না মাহমুদুর রহমান। এ সব বিষয়ে তিনি বলছেন- তিনি নিজের আদর্শ থেকে এসব খবর প্রকাশ করেছেন।

মাহমুদুর রহমান সর্ম্পকে ডিবির অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার খন্দকার নুরুন্নবী প্রাইমখবরকে বলেন, মাহমুদুর রহমানকে ডিবির একটি বিশেষ দল জিজ্ঞাসাবাদ করছে। তবে তিনি অধিকাংশ প্রশ্নের জবাব এড়িয়ে যাচ্ছেন। বিজ্ঞ আদালতের নিয়ম অনুসারে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে এবং তিনি শারীরিকভাবে সুস্থ আছেন।

ডিবির একটি বিশেষ সূত্র জানায়, মাহমুদুর রহমান ডিবির হাজতখানায় বিভিন্ন ধরনের বই পড়ে সময় পার করছেন। সময় মতো ৫ ওয়াক্ত নামাজ আদায় করছেন। ডিবির ক্যান্টিন থেকে হাজতিদের জন্য বরাদ্দকৃত খাবার তিনিও খাচ্ছেন। তবে নিরাপত্তার কারণে বাইরের খাবার তাকে সরবরাহ করা হচ্ছে না। রাতে ও দুপুরে নির্দিষ্ট সময় অনুসারে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।
সূত্র: প্রাইমখবর।