১৪ বছরে একুশে টেলিভিশন

রবিবার, এপ্রিল ১৪, ২০১৩

প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক::

etv logo১৪ বছরে পা দিল দেশের প্রথম বেসরকারি টিভি চ্যানেল একুশে। ১৩ বছর আগের পয়লা বৈশাখে রাষ্ট্রীয় টিভি চ্যানেল বিটিভি’র পাশাপাশি টেরিস্টারিয়েল সুবিধা নিয়ে যাত্রা শুরু করে চ্যানেলটি। শুরু থেকেই একুশ শতকের প্রগতিশীল চিন্তা আর চেতনাকে সঙ্গী করে তথ্য ও বিনোদনের নতুন দুয়ার উন্মোচিত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করে একুশে। তবে গত ১৩ বছরের চ্যানেলটির পথচলা খুব একটা কুসুমাস্তীর্ণ ছিল না।

যাত্রার শুরু থেকে বিবিসি সাংবাদিক সাইমন ড্রিং এর হাত ধরে এগিয়ে চলে একুশে। এসময় বার্তা সম্পাদক ছিলেন প্রয়াত সাংবাদিক মিশুক মুনীর। তবে ২০০২ সালের ২৯ আগস্ট সম্প্রচার আইন লঙ্ঘনজনিত মামলায় আদালতের রায়ে সম্প্রচার বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় বন্ধ স্টেশনের হাল ধরেন ব্যবসায়ী আবদুস সালাম। চ্যানেলকে সম্প্রচারে ফিরিয়ে আনতে সংগ্রাম চলে রাজপথে এবং আদালতে।

পরবর্তী সময়ে ২০০৫ সালের ১৪ এপ্রিল পুনরায় সম্প্রচারের অনুমতি লাভ করলেও উন্মুক্ত সম্প্রচার ক্ষমতা বিলোপ করা হয়। আর ২০০৭ সালের ২৯ মার্চ থেকে টিভি কেন্দ্রটি পূর্ণাঙ্গভাবে তাদের সম্প্রচার কার্যক্রম চালাচ্ছে।

জন্মদিন নিয়ে একুশের চেয়ারম্যান আব্দুস সালাম বলেন, “সাধারণ মানুষের জন্যই কাজ করে চলেছে এই গণমাধ্যমটি।”

তিনি জানান, যেকোনো চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় প্রস্তুত একুশে টেলিভিশন। চ্যানেলটি বাংলার কোটি কোটি মানুষের স্বপ্ন বিশ্বাস আর আস্থার জায়গা। অসামপ্রদায়িক চেতনায় গণতান্ত্রিক স্বনির্ভর বাংলাদেশ গড়ে তুলতে একুশে এগিয়ে চলেছে তার আপন মহিমায়।