পাঠকের চোখে- মফস্বল সাংবাদিকতা

বৃহস্পতিবার, ২৮/০৩/২০১৩ @ ১২:০৬ পূর্বাহ্ণ

mofossol journalআজকের দিনে মানুষের চিন্তা, দৃষ্টিভঙ্গি, মনন, রুচি, বিশ্বাস ও মূল্যবোধ সৃষ্টিতে যার প্রভাব সবচেয়ে বেশি, তা হলো সংবাদপত্র। লক্ষণীয় বিষয় হলো, অধিকাংশ সংবাদপত্র প্রতিদিন মফস্বল সংবাদদাতাদের পাঠানো অনেক গুরুত্বপূর্ণ সংবাদ প্রকাশ করে না। মফস্বল এলাকার বিভিন্ন বৈচিত্র্যময় ঘটনা, দুর্ঘটনা, অনিয়ম, দুর্নীতির সংবাদগুলো প্রকাশিত না হওয়ায় নিজ নিজ এলাকার পাঠকরা আর পত্রিকা পড়তে আগের মতো উৎসাহী হয়ে উঠছেন না। সম্প্রতি আমাদের দেশীয় সংবাদপত্রগুলোর ব্যাপারে মফস্বল এলাকার জনমনে নানা প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। মফস্বল সাংবাদিকতার পেশায় প্রায় ২০ বছরের অভিজ্ঞতার আলোকে আমার ধারণা, রাজধানী ও বিভাগীয় সংবাদ তো বটেই, সে সঙ্গে গ্রামবাংলার জনজীবনের সুখ-দুঃখ, জেলা ও থানা প্রশাসনের অনিয়ম, দুর্নীতি, রাজনীতি, শিক্ষা, সাহিত্য, রহস্য উদঘাটনসহ মেহনতি মানুষের দৈনন্দিন জীবনযাপনের কাহিনী প্রকাশের মাধ্যমেই সংবাদপত্রের মানোন্নয়ন সম্ভব। সমাজ জীবনের ঘটনাপ্রবাহ, নানা চমক, স্পন্দন আর অনিয়ম নিয়েই সংবাদপত্রের অস্তিত্ব। এ কারণেই সংবাদপত্রকে প্রতি মুহূর্তে বিশ্লেষণ করতে হয় পাঠকের মন-মানসিকতা।

আন্তর্জাতিক সাংবাদিকতায় যাদের স্ট্রিংগার বলা হয় তারাই আমাদের দেশে মফস্বল সংবাদদাতা। তারা সংবাদপত্রের পূর্ণ কর্মচারী নন, বেতনভুক্তও নন, কিন্তু সংবাদপত্রের প্রতিনিধিত্ব করেন। এরা তাদের প্রকাশিত সংবাদের প্রতি লাইন রেটে পারিশ্রমিক পান। কেউ কেউ অবশ্য যৎসামান্য মাসোয়ারা ও খরচাপাতি পেয়ে থাকেন। মফস্বল সংবাদদাতার জন্য প্রত্যেকটি ইভেন্ট বা ঘটনা তার শুধু যোগ্যতা নয়, অস্তিত্বের প্রতিই চ্যালেঞ্জ হয়ে আসে, যার জন্য একজন ভালো সংবাদদাতা হতে হলে তার অভিধান থেকে অবশ্যই ব্যর্থতা শব্দটি বাদ দিতে হবে। এখন আমার দৃষ্টি ও অভিজ্ঞতা থেকে মফস্বল সংবাদদাতাদের কিছু সমস্যার ওপর আলোকপাত করতে চাই। হেড অফিসভিক্তিক একজন রিপোর্টার তার এলাকায় চিহ্নিত ব্যক্তি নন। কিন্তু একজন মফস্বল সংবাদদাতা তার এলাকায় চিহ্নিত ব্যক্তি। আরও বড় কথা, তিনি নিজ এলাকায় তার সংবাদপত্রের প্রতিনিধিত্ব করেন। এতে মফস্বল সংবাদদাতার জীবনের ঝুঁকি বেশি বই কম নয়।

আমার দৃঢ় বিশ্বাস, ফটো সাংবাদিকতার বিরাট সম্ভাবনাময় ক্ষেত্র পড়ে রয়েছে গ্রামবাংলায়। কিন্তু মফস্বল সংবাদদাতার আর্থিক সীমাবদ্ধতার কারণেই ফটো সাংবাদিকতা গ্রামবাংলায় প্রসারিত হতে পারছে না। এখন সংবাদপত্র কর্তৃক যদি মফস্বল সংবাদদাতাদের মাধ্যমে ফটো সাংবাদিকতাকে দেশময় প্রসারিত করতে পারেন তাহলে সংবাদপত্র জগতের ভিজ্যুয়াল চেহারাই বদলে যাবে। এ বিষয়ে মফস্বল সংবাদদাতার আর্থিক সীমাবদ্ধতা কীভাবে কাটিয়ে ওঠা যায় সে সম্পর্কে প্রেস মিডিয়া এবং ইলেকট্রনিক মিডিয়া কর্তৃপক্ষকেই গভীর চিন্ত-ভাবনা করে পন্থা উদ্ভাবন করতে হবে।

সূ্ত্র-দৈনিক সমকাল।