সাগর-রুনি হত্যা: সাংবাদিকদের নতুন কর্মসূচি

Wednesday, 11/03/2015 @ 4:46 pm

:: প্রেসবার্তাডটকম ডেস্ক ::

sagor-2সাংবাদিক দম্পতি সাগর সরওয়ার ও মেহেরুন রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্তে আগামী এক মাসের মধ্যে ‘দৃশমান’ কোনো অগ্রগতি না হলে ১১ এপ্রিল বিক্ষোভ মিছিল ও সামাবেশ করার ঘোষাণা দিয়েছেন সাংবাদিক নেতারা।

ওই হত্যাকাণ্ডের তৃতীয় বর্ষপূর্তিতে সাগর-রুনির বিচারের দাবিতে সরকারকে ১০ মার্চ পর্যন্ত সময় বেঁধে দিয়েছিল সাংবাদিকদের সংগঠনগুলো। সেই সময় শেষ হওয়ার পর বুধবার ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি চত্বরে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে নতুন এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন সংগঠনের সভাপতি শাখাওয়াত হোসেন বাদশা।

তিনি বলেন, “১০ এপ্রিলের মধ্যে খুনীদের গ্রেপ্তার ও দৃশ্যমান তদন্ত না হলে ১১ এপ্রিল সকাল ১১টার জাতীয় প্রেসক্লাবে সামনে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করা হবে।”

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিউনের (বিএফইউজে) একাংশের সভাপতি শওকত মাহমুদ, সাবেক সভাপতি রুহুল আমিন গাজী, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের (ডিইউজে) একাংশের সাবেক সাধারণ সম্পাদক শাবান মাহমুদ, রিপোর্টার্স ইউনিটির সাবেক সভাপতি শাহেদ চৌধুরী ও বাংলাদেশ ক্রাইম রিপোর্টার্স অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান খান এই প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তব্য দেন।

সাগর-রুনি হত্যাকাণ্ডের তদন্তে এ পর্যন্ত কয়েজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও এর রহস্য এখনও অনুদ্ঘাটিত। গোয়েন্দা পুলিশের ব্যর্থতার পর এখন র‌্যাব এর তদন্ত করছে।

২০১২ সালের ১১ ফেব্রুয়ারি রাতে রাজধানীর পশ্চিম রাজাবাজারে নিজেদের ভাড়া বাসায় খুন হন মাছরাঙা টেলিভিশনের বার্তা সম্পাদক সাগর এবং তার স্ত্রী এটিএন বাংলার জ্যেষ্ঠ প্রতিবেদক রুনি।

তিন বছরেও এর তদন্ত শেষ করতে পারেনি আইনশৃঙ্খলা বাহিনী, ফলে শুরু হয়নি বিচার প্রক্রিয়াও।

আলোচিত এই হত্যার আট মাস পর ২০১২ সালের ১০ অক্টোবর বনানী থানার একটি হত্যা ও ডাকাতি মামলায় আটক পাঁচ আসামিকে এ মামলায় গ্রেপ্তার দেখানো হয়, যারা চিকিৎসক নেতা ডা. নারায়ণ চন্দ্র দত্ত নিতাই হত্যা মামলার আসামি।

এছাড়া নিহত দম্পতির কথিত পারিবারিক বন্ধু তানভীর রহমান এবং তাদের বাসার দারোয়ান পলাশ রুদ্র পাল ও এনাম আহমেদ ওরফে হুমায়ুন কবিরকেও গ্রেপ্তার করা হয়।

তদন্তে এসে র্যাব সন্দেহভাজন ১৬ জনের ডিএনএ নমুনা পরীক্ষার জন্য যুক্তরাষ্ট্রে পাঠায়। এছাড়া আলামত হিসেবে জব্দ করা ছুরি ও পোশাকের নমুনাও পাঠানো হয়। কিন্তু তাতেও খুনি সনাক্ত করা যায়নি।

নিহতদের পরিবার এবং সাংবাদিকদের পক্ষ থেকেও বিভিন্ন সময় তদন্ত নিয়ে ‘টালবাহানার’ অভিযোগ তোলা হয়েছে।

সূত্র: বিডিনিউজ।

সর্বশেষ